বাঙালি ও বাংলা -০৩

১। বাংলা ভাষার আদি স্তরের স্থিতিকাল-

* ড.সুনীতিকুমারের মতে : দশম থেকে চতুর্দশ শতাব্দী

* ড.মুহম্মদ শহীদুল্লাহর মতে: সপ্তম থেকে দ্বাদশ শতাব্দী 

২। বাংলা ভাষার উদ্ভব সপ্তম শতাব্দীতে (ড.মুহম্মদ শহীদুল্লাহর মতে)।তবে অপশনে তা না থাকলে দশম শতাব্দীতে(সুনীতিকুমারের মতে) বাংলা ভাষার উদ্ভব হয়েছে বলে উত্তর দিতে হবে।

৩।বাংলার আদিম অধিবাসীদের ভাষা অস্ট্রিক। এ ভাষা আর্যদের আগমনে হারিয়ে যায়। আর্যদের ভাষার নাম বৈদিক ভাষা।

৪। পরবর্তীকালে বৈদিক ভাষাকে সংস্কার করে সৃষ্টি  করা হয় সংস্কৃত ভাষা।

৫।কেউ কেউ সংস্কৃত ভাষা থেকে বাংলা ভাষার সৃষ্টি  হয়েছে বলে মনে করলেও প্রকৃতপক্ষে সাধারণ মানুষের মুখের ভাষা ‘প্রাকৃত’ভাষা থেকেই বাংলা ভাষার জন্ম হয়েছে।

৬।প্রাকৃত শব্দের অর্থ – স্বাভাবিক।

৭। বাংলা ভাষার পূর্ববর্তী স্তরের নাম প্রাকৃত।

৮।বাংলা ভাষা ও সাহিত্য প্রত্যক্ষভাবে ঋণী অপভ্রংশ ভাষার কাছে।

৯।বাংলা ভাষার বয়স প্রায় ১০০০ বছর।

১০।ভারতীয় উপমহাদেশের আঞ্চলিক ভাষাগুলোর আদিম উৎস হল অনার্য ভাষা।

১১।ভাষার  পার্থক্য ও পরিবর্তন ঘটে দেশ, কাল ও পরিবেশভেদে।

১২। প্রত্যেক ভাষারই রয়েছে দুটো রূপ-

(ক) লেখ্য বা লৈখিক রূপ ও

(খ) কথ্য বা মৌখিক রূপ।

১৩। বাংলা ভাষার লৈখিক রূপ হল-

(ক) সাধু  ও

(খ)চলিত

১৪। বাংলা ভাষার মৌখিক রূপ হল-

(ক)চলিত ও

(খ) আঞ্চলিক (উপভাষা /Dialect)

 

আগামীকাল সাধু ও চলিত ভাষা নিয়ে থাকবে বিস্তারিত, ইনশাআল্লাহ।

 

Comments

আমাদের ফেসবুক গ্রুপে সংযুক্ত আছেন? না থাকলে আপনার ফেসবুক এপ খুলে ‘BCS Corner‘ লিখে এখনই খোঁজ লাগান। প্রস্তুতির জন্য কতটা কাজে আসতে পারে যোগ না দিলে সম্ভব না জানা!