বাংলা সাহিত্য – মধ্যযুগ ০৪

অনুবাদ সাহিত্য :

সকল সাহিত্যের পরিপুষ্টিসাধনে অনুবাদমূলক সাহিত্যকর্মের বিশিষ্ট ভূমিকা আছে।অনুবাদের মাধ্যমে বিশ্ব সাহিত্যের শ্রেষ্ঠ গ্রন্থের বক্তব্য আয়ত্তে আসে। ভাষার মান বাড়ানোর জন্য সমৃদ্ধতর নানা ভাষা থেকে বিচিত্র নতুন ভাব ও তথ্য সঞ্চয় করে নিজ নিজ ভাষার বহন ও সহন ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলাই অনুবাদ সাহিত্যের প্রাথমিক প্রবণতা। বাংলা সাহিত্যের মধ্যযুগের কবিরা অনুবাদে হাত দিয়েছিলেন।এক্ষেত্রে প্রধানত অনুবাদ হয়েছে –

(ক)সংস্কৃত সাহিত্য  থেকে

(খ)হিন্দি সাহিত্য  থেকে

(গ)আরবি-ফারসি সাহিত্য থেকে

১।পৃথিবীতে জাত মহাকাব্য আছে ৪টি। যথা – রামায়ণ, মহাভারত, ইলিয়াড ও ওডেসি।

২।খ্রিষ্টপূর্ব চতুর্থ শতকে সংস্কৃত ভাষায় ‘রামায়ণ’  রচিত  হয়েছে। রামচরিত অবলম্বনে বাল্মীকি সংস্কৃত ভাষায় প্রথম রামায়ণ রচনা করেন।

৩। ‘রামায়ণে’র প্রথম ও শ্রেষ্ঠ  অনুবাদক (বাংলায়)  হলেন পনের শতকের কৃত্তিবাস ওঝা। এটি প্রথম মুদ্রিত হয় ১৮০২-১৮০৩ সালে উইলিয়াম কেরির উদ্যোগে শ্রীরামপুর মিশনারীর ছাপাখানায়

৪। বাংলা অনুবাদ কাব্যের সূচনা হয় মধ্যযুগে। বাল্মীকির রামায়ণ বাংলায় অনুবাদ করে কবি কৃত্তিবাস ওঝা মধ্যযুগের অনুবাদ সাহিত্যের প্রথম জয়যাত্রা শুরু করেন।

৫।রামায়ণের প্রথম মহিলা অনুবাদক হলেন চন্দ্রাবতী। এই চন্দ্রাবতীই বাংলা সাহিত্যের প্রথম মহিলা কবি। তিনি মনসামঙ্গলের কবি  দ্বিজ বংশীদাসের কন্যা।

৬। কবি কৃষ্ণ দ্বৈপায়ন ব্যাসদেব প্রথমে সংস্কৃত ভাষায় ‘মহাভারত’ রচনা করেন।

৭। মাহাভারতের প্রথম বাংলা অনুবাদক হলেন কবীন্দ্র পরমেশ্বর। চট্টগ্রামের শাসনকর্তা পরাগল খাঁর নির্দেশে  তিনি মহাভারতের বাংলা অনুবাদ করেছিলেন বলে তাঁর অনূদিত মহাভারতের নাম ‘পরাগলী মহাভারত’।

৮। পরাগল খাঁর মৃত্যুর পর তাঁর পুত্র ছুটি খান চট্টগ্রামের শাসনকর্তা হলে তাঁর নির্দেশে কবি শ্রীকর নন্দী মহাভারতের আরো একটি অনুবাদ করেন। ছুটি খানের অনূদিত মহাভারতের নাম ‘ছুটিখানী মহাভারত’।

৯। ছুটি খানের প্রকৃত  নাম নসরত খান।

১০।মহাভারতের জনপ্রিয়,প্রাঞ্জল অনুবাদটি হল সতের শতকের কবি কাশীরাম দাসের। তাই তাঁকে মহাভারতের শ্রেষ্ঠ অনুবাদক বলে।

১১। সংস্কৃত ভাষায় ‘ভাগবত’ লিখেন কবি ব্যাসদেব।

১২। হিন্দুধর্মের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ ‘ভাগবত’।

১৩। মালাধর বসু হলেন ভাগবতের প্রথম বাংলা অনুবাদক এবং তাঁর কাব্যের নাম ‘শ্রীকৃষ্ণবিজয়’।

 

 

 

Comments

আমাদের ফেসবুক গ্রুপে সংযুক্ত আছেন? না থাকলে আপনার ফেসবুক এপ খুলে ‘BCS Corner‘ লিখে এখনই খোঁজ লাগান। প্রস্তুতির জন্য কতটা কাজে আসতে পারে যোগ না দিলে সম্ভব না জানা!